শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ০৮:০৬ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
দানোত্তম শুভ কঠিন চীবর দান ২০২০ এর তালিকা বরণ ও বারণের শিক্ষায় সমুজ্জ্বল শুভ প্রবারণা পূর্ণিমা আগামীকাল প্রবারণা পূর্ণিমা, শুক্রবার থেকে কঠিন চীবর দানোৎসব রামু ট্র্যাজেডির ৮ বছর: বিচার নিয়ে অনিশ্চয়তা প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে আন্তর্জাতিক বৌদ্ধ বিহারে প্রার্থনা অনোমা সম্পাদক আশীষ বড়ুয়া আর নেই প্রবারণা পূর্ণিমা উপলক্ষে বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রে ধারন হল বিশেষ আলেখ্যানুষ্টান বৌদ্ধ ধর্মকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হাত মেলালো ভারত-শ্রীলঙ্কা রাঙ্গামাটিতে থাইল্যান্ড থেকে আনিত দশটি বিহারে  বুদ্ধমূর্তি বিতরণ প্রবারণা পূর্ণিমা উপলক্ষে বাঁশখালী উপজেলা প্রশাসনের সাথে মতবিনিময়

চুলক শ্রেষ্ঠী জাতক


ড. সুমনপ্রিয় ভিক্ষু:

আজ পবিত্র ত্রৈমাসিক বর্ষাবাসের শেষ অমাবস্যা উপোসথ দিবস, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ ইং, ০১ আশ্বিন ১৪২৭ বাংলা, ২৫৬৪ বুদ্ধাব্দ, বুধবার। অমাবস্যা শুরু বুধবার রাত ০৭ টা ৩৫ মি. থেকে বৃহস্পতিবার অপরাহ্ন ০৫ টা ৩৪ মি. পর্যন্ত।

মহামঙ্গল সূত্রে বলা হয়েছে: বাহুসচ্চঞ্চ সিপ্পঞ্চ, বিনযো চ সুসিক্খিতো, সুভাসিতা চ যাবাচা, এতং মঙ্গলমুত্তমং। Vast learning, perfect handicraft, a highly trained discipline and pleasant speech, this is the greatest blessing. অর্থাৎ বহুশাস্ত্রজ্ঞান লাভ করা, বিবিধ শিল্প শিক্ষা করা, বিনয়ী ও সুশিক্ষিত হওয়া, সুভাষিত বাক্য বলা, উত্তম মঙ্গল।

চুলক শ্রেষ্ঠী জাতকে বর্ণিত হয়েছে: সুদূর অতীতে বোধিসত্ত্ব বারাণসীতে একবার চুলক নামক শ্রেষ্ঠী হয়েছিলেন। তিনি জ্যোতিষ শাস্ত্রে ও নিমিত্ত শাস্ত্রে সুপণ্ডিত ছিলেন। একদিন তিনি রাজদর্শনে যাবার সময় পথিপার্শ্বে এক মৃত মূষিক দেখে নক্ষত্রাদি বিচার করে বলেন – কোন বুদ্ধিমান ব্যক্তি যদি এ মূষিক তুলে নেয়, সে ধনী হতে পারবে। তাঁর এক দরিদ্র সেবক তা শুনে সেই মূষিকটি তুলে নেয়। উহা নিয়ে যাবার সময় এক দোকানদার তার বিড়ালের জন্য এক আনায় তা কিনে নেয়। সে সেই পয়সা দিয়ে গুড় এবং কিছু পানীয় জল সংগ্রহ করে রাস্তার ধারে বসে অরণ্য হতে পুষ্পাহরণকারীদের জল ও গুড় দিয়ে সেবা করে। তারা আনন্দিত হয়ে তাকে এক মুষ্টি ফুল দিয়ে যায়। সে তা বিক্রয় করে কিছু বেশী পয়সা পায়। পরদিন প্রবল ঝড় উঠে। রাজ উদ্যানে বহু শুষ্ক ও কাঁচা পাতা এবং ডাল ভেঙ্গে পড়ে। তা পরিষ্কার করতে উদ্যানপাল বিরক্তি হয়ে যায়। সে গিয়ে বলে – ‘যদি আমাকে সব পাতা ও ডাল দাও তা হলে শীঘ্রই আমি সব পরিষ্কার করে দেব।’ উদ্যানপাল সম্মত হলে সে গুড় কিনে খেলার মাঠে যায় এবং ছেলেদের গুড় দিয়ে তাদের দ্বারা উদ্যানের সব পাতা ও ডাল বাহিরে রাশি করে রাখে। কুমোর তার পাত্র দগ্ধ করার জন্য তা ষোল টাকা দিয়ে সব কিনে নিয়ে যায়। এক দিন সে গুড় ও পানীয় জল নিয়ে নগরের সমীপে বড় রাস্তার একধারে বসে এবং পাঁচশত তৃণ হারককে গুড় ও জল দিয়ে তৃপ্ত করে। কিরূপে তার উপকার করবে জিজ্ঞাসা করলে, সে বলে – প্রয়োজনে যখন বলব তখন করো। কয়েক দিনের মধ্যে সে স্থলবনিক ও জলবনিকদের সাথে পরিচয় করে নেয়। এক দিন সে শুনল যে পাঁচশ ঘোড়া নিয়ে এক বণিক পরশু আসবে। সে ঘেসেরেদের বলে – কাল প্রত্যেকে আমাকে এক এক বাণ্ডিল ঘাস দাও এবং আমার ঘাস বিক্রয় না হাওয়া পর্যন্ত তোমাদের ঘাস বিক্রয় করো না এই আমার অনুরোধ। তারা তাতে সম্মত হয়। পরদিন অশ্ববণিক পাঁচশ অশ্ব নিয়ে এসে কোথাও ঘাস না পেয়ে এক হাজার টাকায় তার নিকট হতে পাঁচশ বাণ্ডিল ঘাস কিনে নেয়। আর একদিন সে জানতে পারে যে বন্দরে মালজাহাজ এসেছে। সে এক গাড়ি ভাড়া করে সেখানে গিয়ে পাঁচশ টাকা অগ্রিম দিয়ে জাহাজের সব মাল ক্রয় করে এবং এক তাবু করে দারোয়ানদের নিযুক্ত করে মহাধনীর মত অবস্থান করে। বণিকেরা মাল কিনতে গিয়ে জানে যে এক ধনী সব মাল কিনে ফেলেছে। তারা সকলে তার নিকট এসে এক এক প্রকারের মাল খরিদ করে। এ ব্যাপারে সে দুই লক্ষ্য টাকা আয় করে। সে চিন্তা করে – যার দ্বারা আমি এ সম্পত্তির অধিকারী হয়েছি তার প্রতি কৃতজ্ঞ হওয়া উচিত। সে তার উপকারী চুলক শ্রেষ্ঠীর নিকট গিয়ে তাকে এক লক্ষ্য টাকা উপহার দেয় এবং আদ্যোপান্তে সব বৃত্তান্ত প্রকাশ করে। তিনি তার বুদ্ধি উপায়কুশলতা ও উৎসাহ ইত্যাদি গুণ দেখে অত্যন্ত সন্তুষ্ট হন। তার কাছ থেকে একটি পয়সাও না নিয়ে তার সঙ্গে নিজের মেয়ের বিয়ে দেন শ্রেষ্ঠীর মৃত্যুর পরই সে – ই শ্রেষ্ঠীপদ প্রাপ্ত হয়। বুদ্ধি উৎসাহ ও উপায় কুশলতাদি গুণ থাকলে সাংসারিক জীবনে যে কেউ এমন সৌভাগ্যশালী হতে পারে। সীগালবাদ সূত্রে বুদ্ধ বলেছেন: “যে ব্যক্তি অতি ঠাণ্ডা অতি গরম ইত্যাদি কাজের বাধাসমূহ তৃণের মত অগ্রাহ্য করে দৃঢ় বীর্যে যথা সময়ে কাজ করে যায়, কিছুতেই সে সুখভ্রষ্ট হয় না।

লেখক: ধর্মদূত ড. সুমনপ্রিয় ভিক্ষু, পূর্ব সাতবাড়ীয়া বেপারীপাড়া রত্নাঙ্কুর বিহার, চন্দনাইশ, চট্টগ্রাম।

Facebook Comments

শেয়ার করুন


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *





© All rights reserved © 2018 tathagataonline.net
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com
error: কপি করার চেষ্ঠা না করে নিজের সুপ্ত প্রতিভার বিকাশ করুন
Don`t copy text!