শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ০৭:৩২ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
দানোত্তম শুভ কঠিন চীবর দান ২০২০ এর তালিকা বরণ ও বারণের শিক্ষায় সমুজ্জ্বল শুভ প্রবারণা পূর্ণিমা আগামীকাল প্রবারণা পূর্ণিমা, শুক্রবার থেকে কঠিন চীবর দানোৎসব রামু ট্র্যাজেডির ৮ বছর: বিচার নিয়ে অনিশ্চয়তা প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে আন্তর্জাতিক বৌদ্ধ বিহারে প্রার্থনা অনোমা সম্পাদক আশীষ বড়ুয়া আর নেই প্রবারণা পূর্ণিমা উপলক্ষে বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রে ধারন হল বিশেষ আলেখ্যানুষ্টান বৌদ্ধ ধর্মকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হাত মেলালো ভারত-শ্রীলঙ্কা রাঙ্গামাটিতে থাইল্যান্ড থেকে আনিত দশটি বিহারে  বুদ্ধমূর্তি বিতরণ প্রবারণা পূর্ণিমা উপলক্ষে বাঁশখালী উপজেলা প্রশাসনের সাথে মতবিনিময়
সামাজিক মূল্যবোধ ও অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া

সামাজিক মূল্যবোধ ও অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া


এস লোকজিৎ থের :

আজও চান্দগাঁও বৌদ্ধ মহাশ্মশানে এক মৃত ব্যক্তির অন্ত্যোষ্টিক্রিয়া সমাপ্ত হয় ।যতটুকু জানলাম তিনি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী নয়। কিছু ভিক্ষুকে অনিত্যসভায় আহবান (ফাং)করলেও তারা অপারগতা প্রকাশ করলো। প্রায় সময় যেতে যেতে আমিও একটু মানসিক ভাবে ক্রান্তিবোধ করছি তথাপি কোন ভিক্ষু উপস্হিত না হওয়ায় আমি একাই অন্ত্যোষ্টিক্রিয়া অনুষ্টানের কাজ শেষ করি ।

মাননীয় ভিক্ষুসংঘ ,
আমরা চান্দগাঁও আছি বলে সব অন্ত্যোষ্টিক্রিয়ায় আমরাই যোগদান করব এবং আমাদেরকে শুধু যোগদান করতে হবে এমনটা ভাবা উচিত নয় , মাঝে মাঝে আপনাদের উপস্হিতি ঘটলে সবার জন্য মঙ্গল হয় । আমরাও একটু বিশ্রাম পায় , কারন বতর্মানে প্রতিটি অন্ত্যোষ্টিক্রিয়া অনুষ্টানে যোগদানে একটি মানসিক চাপ থাকে , প্রায় সব এই মানসিক চাপ নেওয়াটা খুবই কঠিন এবং দায়ক দায়িকা শুভানুধ্যায়ী রা বলেন শুধু আপনারা যাবেন কেন অন্য ভিক্ষুসংঘ কোথায় ? তজ্জন্য আমাদেরকে সহযোগিতা করা আপনাদের দায়িত্ব ।

দায়ক– দায়িকা, সুধীজন ,

আজকের অন্ত্যোষ্টিক্রিয়া অনুষ্টানে প্রয়াত ব্যক্তির সহধর্মিনী ও দুই পুত্র ছাড়া (৩জন) আর কোন আত্নীয়স্বজন দেখলাম না , কেন ?? সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কিছু জ্ঞাতীস্বজন কি উপস্হিত হতে পারতো না ? সামাজিক মূল্যবোধ কি হারিয়ে গেছে ,তাদের দেখে মনে হয় নাই তারা একে বারে অসামাজিক মানুষ , একটু সান্তনা দেওয়ার জন্য তো কিছু জ্ঞাতী স্বজনের কাছে থাকা একান্ত প্রয়োজন। এতো স্বার্থপর হলে তো জ্ঞাতীর বন্ধন রক্ষা করতে পারবে না । জ্ঞাতীর বন্ধন না থাকলে মনুষ্যত্ব বোধ থাকবেনা । মনুষ্যত্ব না থাকলে মানব জাতি বিপন্ন হবে ।

তাই বুদ্ধ বলেছেন “জ্ঞাতীর ছায়া বড় সুশীতল “ । একজন জ্ঞাতী মারা গেলে তার দাহকার্য সম্পাদন এবং প্রয়াত স্বজনদের পাশে গিয়ে সান্তনা দেওয়া সমবেদনা জানানো তো জ্ঞাতী কর্তব্য । করোনা করোনা বলে একে বারে দায়িত্ববোধ ভুলে যাওয়া কি উচিত ? সবাই তো মরবো , বাচাঁর জন্য এতো আত্মকেন্দ্রিক হওয়া শোভনীয় নয়, সবাইকে আহবান করবো সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এই কঠিন সময়ে জ্ঞাতীদের পাশে থাকুন ।

( মন্তব্য করার সময় তাদের পরিচয় কেউ জানলেও প্রকাশ না করার অনুরোধ রইল , আমি সচেতন হওয়ার জন্য লিখেছি )

ভদন্ত এস লোকজিৎ থের, মহাসচিব, বাংলাদেশ সংঘরাজ ভিক্ষু মহাসভা

Facebook Comments

শেয়ার করুন


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *





© All rights reserved © 2018 tathagataonline.net
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com
error: কপি করার চেষ্ঠা না করে নিজের সুপ্ত প্রতিভার বিকাশ করুন
Don`t copy text!