মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ০২:৫২ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
দানোত্তম শুভ কঠিন চীবর দান ২০২০ এর তালিকা বরণ ও বারণের শিক্ষায় সমুজ্জ্বল শুভ প্রবারণা পূর্ণিমা আগামীকাল প্রবারণা পূর্ণিমা, শুক্রবার থেকে কঠিন চীবর দানোৎসব রামু ট্র্যাজেডির ৮ বছর: বিচার নিয়ে অনিশ্চয়তা প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে আন্তর্জাতিক বৌদ্ধ বিহারে প্রার্থনা অনোমা সম্পাদক আশীষ বড়ুয়া আর নেই প্রবারণা পূর্ণিমা উপলক্ষে বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রে ধারন হল বিশেষ আলেখ্যানুষ্টান বৌদ্ধ ধর্মকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হাত মেলালো ভারত-শ্রীলঙ্কা রাঙ্গামাটিতে থাইল্যান্ড থেকে আনিত দশটি বিহারে  বুদ্ধমূর্তি বিতরণ প্রবারণা পূর্ণিমা উপলক্ষে বাঁশখালী উপজেলা প্রশাসনের সাথে মতবিনিময়
শিব মন্দিরের নীচে বৌদ্ধ স্তুপের সন্ধান

শিব মন্দিরের নীচে বৌদ্ধ স্তুপের সন্ধান


ড. বরসম্বোধি ভিক্ষু: 

শিব মন্দিরের গর্ভ গৃহের নীচে বৌদ্ধ স্তুপের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। এ বৌদ্ধ স্তুপ শিব মন্দিরের নীচে চাপা পড়েছিল। এ চাঞ্চল্যকর ঘটনা ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশের গুন্টুর হতে ২৫ কিলোমিটার দূরে কৌন্ডবিডু কিলাস্থিত জায়গায়। এ কিলা রেড্ডী সম্রাজ্য দ্বারা ত্রয়োদশ শতাব্দীতে স্থাপিত হয়েছিল। পুরাতাত্ত্বিক বিশেষজ্ঞদের মতে বৌদ্ধ স্তুপের উপরেই জেনে বুঝে পরিকল্পনা করেই শিব মন্দিরের নির্মাণ করা হয়েছিল।

কখনও কখনও জীর্ণোদ্ধারও ইতিহাসের রুদ্ধ দরজা প্রশস্ত হয়ে খুলে যায়। সত্যি উদ্ঘাটন হয়, যখন শিব মন্দিরের পুরানো অংশ ফেলে দিয়ে নতুনভাবে মন্দিরের সংস্কারের কাজে হাত দেওয়া হয় তখন মন্দিরের নীচে চাপা দেওয়া স্তুপের সন্ধান পাওয়া যায়। এখন কেহ কেহ দাবী করছেন সেখান হতে মন্দির অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে স্তুপকে সংরক্ষণ করা হোক।

শিব মন্দিরের গর্ভগৃহের নীচে চাপা দেওয়া এ স্তুপ ৪.৫ফুট উচ্চ, এবং ব্যাস হল ১৩ফুট। স্তুপটি বৃত্তাকার এবং চুনা পাথর দ্বারা নির্মিত। নীচের ভিত্তি পদ্মফুলের আকৃতি বিশিষ্ট।

স্তুপের সংলগ্ন অনেক সুন্দর সুন্দর বুদ্ধমুর্তির পেনেল পাওয়া গিয়েছে। স্তুপের চারিদিকে রেলিংয়ের ধ্বংসাবশেষ রয়েছে। অস্টকোণাকৃতি স্তম্ভও পাওয়া গিয়েছে। ব্রাহ্মী লিপিতে লিখা অভিলেখও পাওয়া গিয়েছে। অভিলেখটিতে রয়েছে আট অক্ষর। অক্ষর সাতবাহন কালীন বলে ধারণা করা হচ্ছে। অক্ষর যদি সাতবাহন কালীন হয় তাহলে এ স্তুপ আনুমানিক ১৮০০ হতে ২০০০ বছরের প্রাচীন হবে। কৌন্ডবিডু কখনও বৌদ্ধ কেন্দ্র ছিল।

( খবর প্রচারিত হয়েছে ২৯শে জানুয়ারী, ২০১৯ দি হিন্দু পত্রিকায়। )

Facebook Comments

শেয়ার করুন


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *





© All rights reserved © 2018 tathagataonline.net
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com
error: কপি করার চেষ্ঠা না করে নিজের সুপ্ত প্রতিভার বিকাশ করুন
Don`t copy text!